বাংলায় আবেদন পত্র লেখার নিয়ম বিস্তারিত ২০২৪

আবেদন পত্র লিখতে চাচ্ছেন, কিন্তু কিভাবে আবেদন পত্র লেখার নিয়ম জানেন না? শুধু আপনি একা নন, আমাদের দেশের প্রায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী একই সমস্যায় ভুগছে।

যেকোনো প্রয়োজনে যদি আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লেখার প্রয়োজন পড়ে তখন অন্য কারও সহযোগিতা নিয়ে লিখতে হয়। এই সমস্যা সমাধানের একমাত্র উপায় হচ্ছে আবেদন পত্র লেখার নিয়ম জেনে নেয়া।

স্পেসিফিক ইনফো ওয়েবসাইটের আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বাংলায় আবেদন পত্র লেখার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়লে কিভাবে দরখাস্ত লিখতে হয় তা জানতে পারবেন।

আবেদন পত্র কী?

কোনো কিছু চেয়ে বা অনুনয় করে যখন একটি চিঠির মাধ্যমে কারও কাছে কোনো আবেদন করা হয়, তখন তাকে আবেদন পত্র বলে। বন্ধু, পরিবার, প্রিয়জনকে যখন চিঠি পাঠানো হয়, তখন সেটি শুধুমাত্র চিঠি। কিন্তু, যখন স্কুলের শিক্ষক, এলাকার চেয়ারম্যান বা কোনো গন্যমান্য ব্যক্তির কাছে কিছু আবেদন করে পত্র লেখা হয়, তখন সেটিকে আবেদন পত্র বা দরখাস্ত বলে।

আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

আবেদনপত্র বা দরখাস্ত লেখার জন্য আমাদেরকে দরখাস্ত লেখার নিয়ম জানতে হয়। এজন্য, আমরা দরখাস্ত লেখার নমুনা অনুসরণ করতে পারি। অথবা, কিভাবে দরখাস্ত লিখতে হয় সেটি শিখে নিতে পারি। আবেদন পত্র বা দরখাস্ত যাই লিখুন না কেন, আপনাকে কিছু সাধারণ নিয়ম অনুসরণ করতে হবে।

একটি দরখাস্ত লেখার সময় কি কি বিষয় মাথায় রাখতে হবে তা নিচে একটি তালিকা আকারে উল্লেখ করে দিয়েছি। চলুন, দেখে নেয়া যাক।

আবেদন পত্র লেখার সময় যা যা করতে হবে –

  • শুরুতেই তারিখ লিখতে হবে।
  • অতঃপর, বরাবর লিখে নিচে প্রাপকের নাম লিখতে হবে।
  • এরপর, প্রাপকের পদবি লিখতে হবে।
  • যে বিষয়ের উপর আবেদনপত্র লিখছেন, সেটি এক লাইনে লিখতে হবে।
  • জনাব, স্যার, মহোদয় ইত্যাদি সম্ভাষণমূলক শব্দ দিয়ে লেখা শুরু করতে হবে।
  • অতঃপর, আবেদনের বিষয়টি সুন্দর করে গুছিয়ে উল্লেখ করতে হবে।
  • প্রেরক বা আবেদনকারীর নাম এবং ঠিকানা ও পদবি উল্লেখ করতে হবে।

আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লেখার সময় অবশ্যই লেখার ভাষার মাঝে বিনয় বা অনুনয় থাকতে হবে। নির্দেশমূলক ভাষা ব্যবহার করলে উক্ত আবেদনটি গ্রহণযোগ্যতা পাবে না। তাই, লেখার সময় অবশ্যই এই বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে।

উপরোক্ত বিষয়গুলো মাথায় রেখে যদি একটি আবেদনপত্র লেখা হয়, তবে সেটি সবথেকে বেশি গ্রহণযোগ্যতা পায়। আপনি যদি আবেদনপত্র লিখতে চান, তবে নিচে উল্লিখিত নমুনাগুলো অনুসরণ করতে পারেন।

আবেদন পত্র লেখার নমুনা

আবেদন পত্র লেখার সময় আমরা ঠিকভাবে লিখতে পারিনা নিয়মিত লেখার অভ্যাস না থাকার কারণে। তাই, আপনাদের জন্য আমি নিচে কিছু আবেদন পত্রের নমুনা উল্লেখ করে দিয়েছি। এগুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই যেকোনো ধরণের আবেদন পত্র লিখতে পারবেন।

অনুপস্থিতির জন্য ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

কোনো কারণে বিদ্যালয়ে বা কলেজে উপস্থিত হতে না পারলে নিচে দেয়া নমুনা অনুসরণ করে সহজেই একটি অনুপস্থিতির জন্য ছুটির আবেদন পত্র লিখতে পারবেন।

তারিখ-১৯/১২/২০২৩ খ্রিঃ
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
রংপুর সরকারী কলেজ
রংপুর

বিষয়ঃ অনুপস্থিতির জন্য ছুটির আবেদন।

জনাব
বিনিত নিবেদন এই যে, আমি আপনার কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর একজন নিয়মিত ছাত্র। শারিরীক অসুস্থতার কারনে আমি গত ১৫/১২/২০২৩ খ্রিঃ হতে ১৮/১২/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ পর্যন্ত মোট ০৪ (চার) দিন কলেজে উপস্থিত হতে পারিনি।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন এই যে, আমার অসুস্থতার কথা বিবেচনা করে ০৪ (চার) দিনের ছুটি দানে বাধিত করবেন।

বিনীত
আপনার একান্ত বাধ্যগত
মোঃ ফারহান ইসলাম
শ্রেণী-দ্বাদশ
বিভাগ-ব্যবসায় শিক্ষা
রোল নং-০১

অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

অসুস্থতার কারণে স্কুলে/কলেজে/অফিসে উপস্থিত হতে না পারলে ক্লাস শিক্ষক বা অফিসের বসের কাছে একটি আবেদনপত্র লিখতে পারেন। আবেদন পত্র লেখার জন্য নিচে উল্লিখিত অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন পত্র নমুনাটি অনুসরণ করতে পারেন।

তারিখ: ১৯/১২/২০২৩ খ্রিঃ
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
রংপুর জিলা স্কুল ও কলেজ
রংপুর সদর, রংপুর

বিষয় : অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন পত্র

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আজ বিদ্যালয়ে এসে দুইটি ক্লাস করার পর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ি। অসুস্থতার কারণে আমার পক্ষে পরবর্তী ক্লাসগুলো করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই, জনাবের নিকট আকুল আবেদন এই যে, আজকের বাকী ক্লাসগুলোর জন্য আমাকে ছুটি দিয়ে বাধিত করবেন।

অতএব, মহোদয়ের নিকট বিশেষ আবেদন এই যে, অসুস্থতার কথা বিবেচনা করে আমাকে আজকের বাকী ক্লাসেগুলোর জন্য ছুটি দিয়ে বাধিত করবেন।

বিনীত
মো: ফারহান ইসলাম
ক্লাস ১০, রোল ০১

অগ্রিম ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

যেকোনো প্রয়োজনে বিদ্যালয়ে/কলেজে অথবা অফিসে উপস্থিত হতে পারবেন না এমন পরিস্থিতি হলে অগ্রিম ছুটি চেয়ে আপনার শিক্ষক অথবা অফিসের বসের কাছে একটি আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লিখে জমা দিতে পারেন। এজন্য, নিচে উল্লিখিত নমুনাটি অনুসরণ করতে পারেন।

তারিখ: ১৯/১২/২০২৩ খ্রিঃ
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়
রংপুর

বিষয়ঃ অগ্রিম ছুটির আবেদন।

জনাব
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্র। আগামী ২২/১২/২০২৩ খ্রিঃ তারিখ আমার বড় বোনের শুভ বিবাহ অনুষ্ঠিত হবে। তাই ২০/১২/২০২৩ খ্রিঃ হতে ২৩/১২ /২০২৩ খ্রিঃ তারিখ পর্যন্ত মোট ০৪ (চার) দিন বিদ্যালয়ে উপস্থিত হতে পারবো না।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন এই যে, উপরোক্ত বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকে ০৪ (চার) দিনের অগ্রিম ছুটি প্রদান করে বাধিত করবেন।

বিনীত
আপনার একান্ত বাধ্যগত
মোঃ ফারহান ইসলাম
শ্রেণী-নবম
বিভাগ-ব্যবসায় শিক্ষা
রোল নং-১১

দরখাস্ত লেখার নিয়মাবলী

বাংলায় দরখাস্ত লেখার জন্য উপরে উল্লিখিত আবেদনপত্র লেখার নমুনাগুলো অনুসরণ করতে পারেন। এই নমুনাগুলো অনুসরণ করে যেকোনো ধরণের দরখাস্ত লিখতে পারবেন। অফিসিয়াল দরখাস্ত লেখার নিয়ম এবং স্কুল বা কলেজে ছুটির জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম প্রায় একই।

শুধুমাত্র লেখার সময় বিষয় পরিবর্তন করতে হবে এবং প্রেরক ও প্রাপকের সকল তথ্য সঠিকভাবে লিখতে হবে। তবেই, আপনি সুন্দর করে একটি দরখাস্ত লিখতে পারবেন। এতে করে আপনার দরখাস্তটি অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে সবথেকে বেশি।

যেসব দরখাস্ত সঠিক ভাবে লেখা হয় না, প্রেরক এবং প্রাপকের সঠিক তথ্য দেয়া থাকে না, লেখার মাঝে আবেদনের ভাব থাকে না, সেসব দরখাস্ত অনুমোদন পায় না। তাই, উপরোক্ত নিয়ম এবং নমুনাগুলো অনুসরণ করে একটি আবেদন পত্র লিখতে পারবেন নিজেই। এখন থেকে আর অন্য কারও সহযোগিতা নিতে হবে না।

শেষ কথা

স্পেসিফিক ইনফো ওয়েবসাইটের আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বাংলায় আবেদন পত্র লেখার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করেছি। আবেদনপত্র কিভাবে লিখতে হয় এর নিয়ম এবং নমুনাগুলো দেখে থাকলে আশা করছি আপনিও পরবর্তীতে নিজে থেকেই আবেদন পত্র লিখতে পারবেন। এমন আরও তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

আমি Specific Info ওয়েবসাইটের প্রতিষ্ঠাতা এবং অ্যাডমিন। প্রফেশনালি কন্টেন্ট রাইটিং করার পাশাপাশি এই ব্লগে পড়ালেখা, সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক তথ্য নিয়ে লিখে থাকি।

Leave a Comment